মিশরের ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য কত ব্যাংক ব্যালেন্স লাগে

মিশরে ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য কত ব্যাংক ব্যালেন্স লাগে এ সম্পর্কে আরো কিছু বিস্তারিত তথ্য আপনাদের সাথে আমি এই আর্টিকেলে আলোচনা করব। 

আশা করব আমার এই আর্টিকেলটি পড়ার পরে অবশ্যই আপনি মিশরে যাওয়ার সম্পর্কে অনেক তথ্যই পেয়ে যাবেন। 

আশা করব আমার এই তথ্যগুলো আপনি যদি মিশার যেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার কাজে লাগতে পারে। 

তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ রইল অবশ্যই আপনি আমার এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ দেখে নিবেন, তাহলে চলুন আজকের মত শুরু করা যাক আজকের এই আর্টিকেলটি। 

মিশরের ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য কত ব্যাংক ব্যালেন্স লাগে

মিশরের ট্যুরিস্ট ভিসার জন্য কত ব্যাংক ব্যালেন্স লাগে

আপনারা যারা মিশরের টুরিস্ট ভিসার জন্য যেতে চান তারা হয়তো অনেকেই জানেন না মিশরের টুরিস্ট ভিসা করতে হলে কি কি প্রয়োজন। 

তাই আপনাদের আজকে আমি এখানে জানিয়ে দেবো মিশরে ট্যুরিস্ট ভিসা প্রসেসিং এর জন্য কি কি ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন হয়। 

১ পাসপোর্ট ন্যূনতম ৬ মাস মেয়াদ থাকতে হবে। 

২ ব্যাংক ব্যালেন্স নিম্নতম এক থেকে দুই লক্ষ টাকা জনপ্রতি, এছাড়া বিগত ছয় মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট এর কপি। 

৩ দুই কপি ছবি সাদা ব্যাকগ্রাউন্ড সহ টুরিস্ট ভিসার জন্য আপনার এই সমস্ত ডকুমেন্ট নিয়ে মিশর দূতাবাসে যোগাযোগ করতে হবে। 


মিশর যেতে কত টাকা লাগে

আপনারা যারা মিশর ভ্রমণের উদ্দেশ্য যেতে চান তারা হয়তো অনেকেই জানেন না মিশরে যেতে হলে ভ্রমণের খরচ কত পড়তে পারে। 

তারা অবশ্যই এখান থেকে জেনে নিতে পারবেন আপনারা মিশরে যদি ভ্রমণের উদ্দেশ্যে যান তাহলে আপনাদের কত খরচ হতে পারে। 

সেক্ষেত্রে আমি এখানে আনুমানিক একটি ধারণা আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম, যে রকম মিশরের কায়রোতে তিন রাত চার দিন থাকতে হলে আপনার খরচ পড়বে মাত্র ৭৯হাজার টাকা। 

এছাড়াও বিস্তারিত ভাবে তথ্য জানতে হলে আপনারা নিচের এই নাম্বার গুলোতে যোগাযোগ করতে পারেন। 

মোবাইল নাম্বার

০১৬১৪৪৬৬৬০১, ০১৬১৪৪৬৬৬০২, ০১৬১৪৪৬৬৬১১, ০১৬১৪৪৬৬৬১৫, ০২-৯৮২১২৬৯-৭১। ...


মিশরের ভিসা প্রসেসিং

আপনারা যারা মিশরের ভিসা প্রসেসিং সম্পর্কে জানতে চান তারা এখান থেকে জেনে নিন কিভাবে ভিসা প্রসেসিং করতে হয়। 

মিশরের টুরিস্ট ভিসা প্রসেসিং এর জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট হলো

১ পাসপোর্ট নিম্নতম 6 মাস থাকতে হবে। 

২ ব্যাংক ব্যালেন্স ন্যূনতম ১ থেকে ২ লক্ষ টাকা জনপ্রতি সহ বিগত ছয় মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট। 

৩ ব্যবসায়ীদের জন্য ট্রেড লাইসেন্স ইংরেজিতে অনুবাদ সহ এর ফটোকপি কোম্পানির প্যাড সাথে ভিজিটিং কার্ড ইংরেজিতে। 

৪ চাকুরীজীবীদের জন্য অফিস থেকে এনওসি লেটার ভিজিটিং কার্ড। 


মিশর ভিসা আবেদন ফরম

আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে ভ্রমণের উদ্দেশ্যে অথবা ব্যবসার উদ্দেশ্যে মিশরে যেতে চান তারা হয়তো অনেকেই জানেন না কিভাবে আবেদন করতে হয়। 

আবার অনেকেই আছেন আবেদন করতে হলে যে ফরম পূরণ করতে হয় সে বিষয়ে জানেন না তাই অনেকেই ফরম খুঁজে থাকেন। 

তারা চাইলে এই লিংকে গিয়ে ফরম পূরণ করার ব্যাপারে যেকোনো টিপস অথবা এখান থেকে ফর্ম পূরণ করতে পারবেন। 

লিংকটি এখানে দেওয়া হলো

শেষ কথা

আপনারা যারা মিশর সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চেয়েছেন হয়তো আমি আমার এই আর্টিকেলে যতটুক সম্ভব আপনাদের জানিয়েছি। 

আশা করি এর থেকে আপনারা কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন যারা মিশরে যেতে চান তাদের জন্য। 

পাঠক ভাই ও বোনেরা মিশরের টুরিস্ট ভিসার জন্য কত টাকা ব্যাংক ব্যালেন্স লাগে এছাড়া আরো কিছু বিস্তারিত তথ্য আজকের মতন এখানেই শেষ করলাম সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। 

8th Post

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন

যোগাযোগ ফর্ম