মালয়েশিয়া যেতে কোথায় যোগাযোগ করতে হবে

আপনারা যারা বিভিন্ন দেশে যেতে চান তারা হয়তো জানেনা যেতে হলে কি কি করতে হয়, এরই পরিপ্রেক্ষিতে আমি আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব। মালয়েশিয়া যেতে কোথায় যোগাযোগ করতে হবে এই বিষয়ের উপরে, আশা করব আপনারা আমার এই আর্টিকেলটি পড়ার পরে উপকৃত হবেন। 


কেননা যারা মালয়েশিয়ায় যেতে চান তারা হয়তো জানেনা কোথায় যোগাযোগ করলে আপনারা খুব সহজেই যেতে পারবেন। এজন্য আমি আপনাদের এই বিষয়টা একটু সহজ করে দেওয়ার জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি। আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম আশা করব আপনারা এখান থেকে কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন, তাই আর বেশি কথা না বাড়িয়ে চলুন দেখে নেয়া যাক আজকের এই আর্টিকেলটি। 

মালয়েশিয়া যেতে কোথায় যোগাযোগ করতে হবে


মালয়েশিয়া যেতে যেভাবে নিবন্ধন করবেন


দেশব্যাপী বিভিন্ন জেলায় বিএমইটি এর ব্যালিস্টিক কার্যালয় এবং 11 টি সরকারি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র সরাসরি উপস্থিত হয়ে নিবন্ধন করা যাবে। সেক্ষেত্রে সাথে করে কর্মী পাসপোর্ট, পাসপোর্ট সাইজের ছবি, নিজের মোবাইল নাম্বার, তাছাড়া যদি ইমেইল থাকে। 


তাহলে সেটি যদি কোন কথা থাকে সেটি নিয়ে যেতে হবে কেন্দ্রে গিয়ে নিবন্ধন করলে আঙুলের ছাপ নেওয়া হবে। এসব কেন্দ্রে কর্মীরা আগ্রহী শ্রমিকদের তথ্য নিবন্ধন সংযুক্ত করে নিবন্ধন প্রক্রিয়া সহায়তা করবেন। 


এছাড়াও সরকার কর্তৃক অনুমোদিত আমি প্রবাসী অ্যাপ ব্যবহার করেও নিবন্ধন করা যাবে 200 টাকা ফি দিতে হবে। অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করলে 200 টাকার সঙ্গে অতিরিক্ত 100 টাকা আমি প্রবাসী সার্ভিস চার্জ হিসেবে পরিশোধ করতে হবে, 18 থেকে 45 বছর বয়সী যে কেউ নিবন্ধন করতে পারবেন। 


কর্মের একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি হবে দুই বছরের জন্য নিবন্ধন এর কার্যকারিতা থাকবে, যে সাতটি দেশ এখন বাংলাদেশি কর্মীরা সবচেয়ে বেশি যায়। এইসব এই সময়কালে আগ্রহী কর্মী নিজের সম্পর্কে তথ্য আপডেট ও এডিট করতে পারবেন। নতুন কোনো প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা অর্জনের ডিগ্রী সার্টিফিকেট আপলোড করতে পারবেন। 


যারা আগেই বিদেশে যাওয়ার জন্য বিএমইটিতে নিবন্ধন রয়েছেন তাদের নতুন করে নিবন্ধনের প্রয়োজন নেই। তবে তারাও তথ্য আপডেট করতে পারবেন নিবন্ধন সম্পূর্ণ হলে কর্মী ফোন নাম্বারে একটি বার্তা যাবে। তাই আপনারা এসব জায়গায় গিয়ে খুব সহজেই আপনি মালায়শিয়া যেতে হলে আবেদন করতে পারেন। 


নিবন্ধনের পর যেভাবে নিয়োগ হবে


বিএমইটি থেকে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে সকল কর্মী কারিগরি শিক্ষণ কেন্দ্র ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি। অথবা অন্য কোনো বৈধ কারিগরি প্রতিষ্ঠান থেকে কোন ধরনের দক্ষতার প্রশিক্ষণ রয়েছে। তারা এই প্রশিক্ষণের সনদ নিবন্ধনের সময় আপলোড করলে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন। 


গত বছর ডিসেম্বরে থেকে সমঝোতা স্মারক সই হয় এখন তখন তাতেও কিছু যোগ্যতা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। এর মধ্যে রয়েছে অন্যতম ইংরেজির জ্ঞান মালয়েশিয়ার ভাষার জ্ঞান বাড়তি যোগ্যতা হিসেবে বিবেচিত হবে। 


কিন্তু মালয়েশিয়া ভাষার জ্ঞান জানা না থাকলে তাকে অযোগ্য হিসেবে বিবেচনা করা হবে না কৃষি, নির্মাণ, গৃহকর্মী, বাগান পরিচ্ছন্নতাকর্মী, নিতে চায় মালয়েশিয়া। মালয়েশিয়া থেকে নিয়োগদাতা বিমান টিকিট পাবেন তবে বাংলাদেশ অশেষ স্বাস্থ্য পরীক্ষার খরচ কে বহন করতে হবে। 


প্রিয় পাঠক মালয়েশিয়া যেতে কোথায় যোগাযোগ করতে হবে, এ বিষয়ে সম্পর্কে আজকের মতো এতোটুকুই ছিলো ছিলো সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। 


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন

যোগাযোগ ফর্ম